আলোর সন্ধানী AloR Sondhani

"আশ্চর্যজনক পৃথিবীর নবগতদের জন্য আলোর সন্ধানী। যা দেবে আলোর সন্ধান।"

যখন ফেব্রুয়ারি মাস ছিল ৩০ দিনের

যখন ফেব্রুয়ারি মাস ছিল ৩০ দিনেরপৃথিবীর সর্বত্রই একটি বর্ষপঞ্জি প্রচলিত, আর তা হলো ‘ইংলিশ ক্যালেন্ডার ইয়ার’। ইংলিশ নামটি যুক্ত হলেও এই ক্যালেন্ডার রোমানদের তৈরি। তারা আবার এটি ধার করেছিল গ্রিকেদের কাছ থেকে। প্রাচীন গ্রিকবাসীদের নিজস্ব বছরের সময়কালের ব্যাপ্তি ছিল ৩০৪ দিনের এবং আর মাসের সংখ্যা ছিল ১০টি। ওই ক্যালেন্ডারের প্রথম মাস ধরা মার্চ মাস থেকে। খ্রিস্টপূর্ব ৭০০ অব্দে রোম-সম্রাট নুমা পম্পিলিউস গ্রিক ক্যালেন্ডারের সঙ্গে  জানুয়ারি ও ফেব্রুয়ারিকে যথাক্রমে বছরের ১১ ও ১২ মাস হিসাবে যুক্ত করেন। ওই বারো মাসের ক্যালেন্ডারটি আগের থেকে ভালো হলেও তাতে কিছু সমস্যা থেকে যাচ্ছিল। তবু দীর্ঘদিন ওই ব্যবস্থাই বজায় ছিল। অনেক দিন পর খ্রিস্টপূর্ব প্রথম শতকে রোমান সম্রাট জুলিয়াস সিজারের নির্দেশে ক্যালেন্ডারকে তারিখ অনুযায়ী সাজানো হলো এবং জানুয়ারি ও ফেব্রুয়ারি বছরের প্রথম এবং দ্বিতীয় মাস।
রোমান পুরাণে বলা হয়েছে, জুলিয়াস সিজারের বছরের দ্বিতীয় মাস ফেব্রুয়ারি শব্দটি এসেছে ল্যাটিন ‘ফেব্রুয়ারিয়াস’ (februarius) থেকে, যার অর্থ শুদ্ধ করা। রোম-সম্রাট পম্পিলিউস প্রবর্তিত প্রাচীন রোমান ক্যালেন্ডারে ফেব্রুয়ারি বছরের শেষ মাস হিসাবে চিহ্নিত ছিল। এই শেষ মাসে রোমানরা একটি শুদ্ধিকরণ বা পুরনো বছরের যা কিছু খারাপ যত আবর্জনা ঝেড়ে ফেলে নতুন বছরকে আমন্ত্রণ করার উৎসব করত; অনেকটা বাংলা বছরের চৈত্র শেষের গাজন উৎসবের মতো। এই শুদ্ধিকরণ উৎসবের নাম থেকেই মাসটির নাম ‘ফেব্রুয়ারি’। প্রথম দিকে ফেব্রুয়ারি মাসের দিন সংখ্যা ছিল ৩০।
পরবর্তীতে সিজার ফেব্রুয়ারি মাস থেকে একটি দিন কেটে নিয়ে বছরের মাঝের দিকের একটি মাস ‘কুইন্টিলিস’ (quintilies)-এর সঙ্গে যুক্ত করেন (পরে ওই মাসটিকে জুলিয়াস সিজারের নামানুসারে ‘জুলাই’ নামে চিহ্নিত করা হয়)। আবার আর এক রোম-সম্রাট অগস্টাস ফেব্রুয়ারি থেকে আরও একটি দিন কেটে নিয়ে ‘সেক্সটিলিয়েস’ (sextilies) নামের মাসটির সঙ্গে জুড়ে দেন সেই মাসটিও পরে সম্রাটের নামানুসারে ‘অগাস্ট’ নামে চিহ্নিত হয়)। ফলে ফেব্রুয়ারি মাসের দিন সংখ্যা কমে গিয়ে দাঁড়ায় ২৮।
এদিকে, পৃথিবীর বার্ষিক গতির সময়কাল ৩৬৫ দিন ৬ ঘণ্টা ২৪ মিনিট, তখন পুরো বছরকে ৩৬৫ দিনের হিসাবে মাস অনুযায়ী ভাগ করে নিলেও সমস্যা হল অতিরিক্ত ৬ ঘণ্টা সময়কে নিয়ে। তখন হিসেবপত্র করে স্থির করা হল যে, ওই ৬ ঘণ্টাগুলোকে যোগ করে প্রতি চার বছর অন্তর একটি করে দিন বেশি ধরা হবে। এই অতিরিক্ত দিনটি যে বছর যোগ করা হবে তার নাম হবে ‘লিপ-ইয়ার’। দুই রোমান সম্রাট কর্তৃক দিন কেটে নেয়ার ফলে ফেব্রুয়ারি মাসের দিন সংখ্যা কমে হয়েছিল ২৮। তাই অতিরিক্ত দিনটি যোগ করে দেয়া হলো ফেব্রুয়ারি মাসের সঙ্গে। সেজন্য প্রতি চার বছর অন্তর ফেব্রুয়ারি মাসের দিন সংখ্যা হয় ২৯।
সোর্সঃ মানবকন্ঠ
Advertisements

Leave a Reply

Please log in using one of these methods to post your comment:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s

%d bloggers like this: